মায়ের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন মেয়ে লামিয়া

Posted on Updated on


diti-p যে চলচ্চিত্র জগত পারভীন সুলতানা দিতিকে এনে দিয়েছিল খ্যাতি, সেই জগতের মানুষগুলোই শেষ শ্রদ্ধা জানালো তাকে। আজ সোমবার সকাল ১০টায় বাংলাদেশ ফিল্ম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন, বিএফডিসিতে নিয়ে আসা হয় দিতির মরদেহ। এ সময় তাঁর প্রতি বিএফডিসি সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো শ্রদ্ধা নিবেদন করে। সকাল থেকেই দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা সেখানে জড়ো হতে থাকেন। অনেকেই সেখানে কান্নায় ভেঙে পড়েন।সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে  জানাজা শেষে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে লাশবাহী গাড়ি। বাদ জোহর দ্বিতীয় জানাজা শেষে নারায়ণগঞ্জের পারিবারিক কবরস্থানে তাঁর লাশ দাফন করা হবে।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, নায়ক আলমগীর, রুবেল, ওমর সানিসহ আরো অনেকে। অভিনেত্রীদের মধ্যে শেষ বিদায় জানাতে বিএফডিসিতে যান চম্পা, খালেদা আক্তার কল্পনা, নায়িকা নাসরিন, দিলারা ইয়াসমিন, রাশেদা চৌধুরী প্রমুখ। এ ছাড়া কাবিলা, হেলাল খান, আহম্মেদ শরিফ, মিজু আহম্মেদসহ বিভিন্ন পরিচালক-প্রযোজক ও আপনজনরা বিএফডিসিতে আসেন দিতিকে দেখতে।

এরপর লাশ মরহুমার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ‍নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বাদ জোহর শেষ জানাজার পর দিতিকে পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত করা হবে।

‘কাজের প্রতি মায়ের অন্যরকম ঝোক ছিল। চলচ্চিত্রের মানুষের প্রতি যে ভালোবাসা মায়ের ছিল, তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়। এমন হয়েছে, মা অসুস্থ অবস্থায় কাজ করতে চাইত। মা অসুস্থ হওয়ার পরেও একবার সারাদিন এফডিসিতে ছিল। অসুস্থতার বিষয়টি কাউকে বুঝতে দেয়নি। আমি পরিবারের পক্ষ থেকে সবার কাছে দোয়া চাই।’
কথাগুলো বলছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় নায়িকা দিতির মেয়ে লামিয়া চৌধুরী। এসময় পাশে ছিল তার ভাই দীপ্ত। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থাতে (বিএফডিসি) পারভীন সুলতানা দিতির দ্বিতীয় নামাজে জানাজার আগে কথাগুলো বলেন তিনি।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির মহাসচিব মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘আমরা অনেক ভালো একজন শিল্পী হারালাম। এমন একজন শিল্পী যাকে চিন্তা করে শক্তিশালী একটি চরিত্র তৈরি করা যেত, মজবুত হতো গল্পের গাঁথুনি। সবারই একদিন যেতে হয়, যে কারণে যে কারো চলে যাওয়া মেনে নিতে হয়। অভিনয়শিল্পী হিসেবে তিনি কেমন ছিলেন, সেটা দর্শক জানেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি অসাধারণ একজন মানুষ ছিলেন। সবাই দোয়া করবেন আল্লাহ্ যেন উনাকে বেহেস্ত নসিব করেন।’

শিল্পী সমিতির সহসভাপতি অভিনেতা ওমর সানি বলেন, ‘কিছু দিন আগেও আমরা এক সাথে অভিনয় করেছি, ডাবিং করেছি একটি ছবিতে। উনি সব সময়ই বলতেন জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত চলচ্চিত্র নিয়ে কাজ করতে চান। উনি তাই করেছেন। এত ভালো মানুষ আর এত ভালো সহশিল্পী খুব কমই হয়।’

নায়ক আলমগীর বলেন, ‘দিতি শুরু থেকেই আমাকে বাবা বলে ডাকতেন। তিনি অনেক মিশুক প্রকৃতির মানুষ ছিলেন। সবাই দোয়া করবেন তিনি যেন ভালো থাকেন।’

সহযোগী পরিচালক সমিতির সভাপতি এস আই  ফারুক বলেন, ‘আমাদের কাছে অনেক ভালো লাগছে যে উনাকে আমরা এফডিসিতে সম্মান জানাতে পারলাম। গতকাল সন্ধ্যায় উনার ছেলেমেয়েরা চাইছিলেন এফডিসিতে না এনে নারায়ণগঞ্জে নেওয়া হবে। তখন নিজেকে অনেক অসহায় মনে হচ্ছিল। যাঁর সাথে সারাজীবন কাজ করেছি, তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারব না? শুধু সহকারী পরিচালক বা শিল্পী নয় আমরা যারা দীর্ঘদিন একসাথে কাজ করি তখন আমাদের কাজের বাইরেও একটা সম্পর্ক তৈরি হয়। যেটা মা-বোন-ভাই–বাবার চেয়ে কম নয়। এফডিসিতে উনার লাশ নিয়ে আসা হবে, আমরা শ্রদ্ধা জানাব—এটা আমাদের অধিকার। উনার পরিবারকে ধন্যবাদ আমাদের সেই সুযোগটা দেওয়ার জন্য।

দিতি গতকাল রোববার বিকেল চারটা পাঁচ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সার ও পরে পারকিনসন্স রোগে ভুগছিলেন।

 

Advertisements

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s